আজিমভ: যুক্তি আর আশাবাদে ভবিষ্যতের সমীকরণ

isaac-asimov
“Your assumptions are your windows on the world. Scrub them off every once in a while, or the light won’t come in.” – Isaac Asimov

(লেখাটির একটি সম্পাদিত রুপ বণিক বার্তার সাপ্তাহিক প্রকাশনা সিল্করুটের ‘আইজাক আজিমভের ১০০’ সংখ্যায় প্রকাশিত হয়েছিল)

আসিমভ নয়, আজিমভ। আজিমভ পরিবার ১৯২৩ সালে যখন সোভিয়েত রাশিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিল, তাদের পদবী ইংরেজী হরফে লিখতে গিয়ে আইজাকের পিতা জুডা আজিমভ ‘এস’ ব্যব্হার করেছিলেন এই বিশ্বাসে যে, এই ‘এস’টির উচ্চারণ জার্মান ‘এস’ অর্থাৎ ‘জি’ এর মতই হবে। বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির স্বর্ণযুগের ‘বিগ থ্রি’ লেখকদের একজন আইজাক আজিমভ, তার কাহিনিতে বৈজ্ঞানিক তথ্যের নির্ভুলতা আর যুক্তিকে (‘হার্ড’ সায়েন্স ফিকশন) মূলত গুরুত্ব দিয়েছিলেন। প্রথম স্ত্রী গারট্রুড একবার আজিমভকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, ‘জীবনের শেষে কি বলবে, যদি তুমি একশ বই লেখো আর জীবনকে উপভোগ করতেই ব্যর্থ হও’? ‘শুধুমাত্র একশটি?’, তিনি উত্তর দিয়েছিলেন। ১৯৬৯ সালে প্রকাশিত ‘ওপাস ১০০’ – তার শততম বইটিতে তিনি এই ঘটনাটির কথা লিখেছিলেন। জীবদ্দশায় তিনি পাঁচ শতাধিক বই লিখেছিলেন অথবা সম্পাদনা করেছিলেন।

Continue reading “আজিমভ: যুক্তি আর আশাবাদে ভবিষ্যতের সমীকরণ”

আজিমভ: যুক্তি আর আশাবাদে ভবিষ্যতের সমীকরণ

দ্য সেলফিশ জিন ইবুক

বিল হ্যামিলটন, জন মেনার্ড স্মিথ, রোনাল্ড ফিশার, রবার্ট ট্রিভার্স, জর্জ কার্লোস উইলিয়ামস এবং নিজের ধারণাগুলোর অসাধারণ একটি সংশ্লেষণ করে রিচার্ড ডকিন্স তার দ্য সেলফিশ জিন বইটি লিখেছিলেন ১৯৭৬ সালে। বইটির জিন-কেন্দ্রিক বিবর্তনের ধারণাটি অবশেষে প্রাকৃতিক নির্বাচনের কাজ করার একক হিসাবে জিনের ভূমিকাটিকে প্রতিষ্ঠা করেছিল। এবং একই সাথে এটি ব্যাখ্যা করেছিল কেন এই স্বার্থপর জিনই পারস্পরিক পরার্থবাদিতাকে ব্যাখ্যা করতে পারে। ২০১৭ সালে রয়্যাল সোসাইটি এটিকে সর্বকালের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিজ্ঞানের একটি বই হিসাবে চিহ্নিত করেছে। চার দশক পরে অবশেষে বইটির পূর্ণাঙ্গ বাংলা অনুবাদ প্রকাশ (যদিও ইবুক আকারে) করা সম্ভব হলো। ২০১৬ সালে প্রকাশিত ‘৪০ তম প্রকাশনা বার্ষিকী’ সংস্করণ অনুসরণ করে এটি অনুবাদ করা হয়েছে। এখানে যুক্ত হয়েছে একটি বাড়তি এপিলোগ ছাড়াও অসংখ্য টীকা। এটি অনুবাদ করেছেন কাজী মাহবুব হাসান। বইটি ইবুক আকারে প্রকাশ করেছে Sheiboi । দেশ ও দেশের বাইরে যে কেউই বইটি নাম মাত্র একটি মূল্যে সংগ্রহ করতে পারবেন সেইবুক অ্যাপ ব্যবহার করে। সুপ্রজ্ঞা অনুবাদ উদ্যোগকে এভাবে আরো গুরুত্বপূর্ণ কালজয়ী বিজ্ঞানের বই অনুবাদ করতে সহায়তা করুন। (সুপ্রজ্ঞা অনুবাদ উদ্যোগ)

#দ্য_সেলফিশ_জিন #বিবর্তন #রিচার্ড_ডকিন্স #অনুবাদ #বিজ্ঞান #কাজী_মাহবুব_হাসান

রিচার্ড ডকিন্স : দ্য সেলফিশ জিন
অনুবাদ: কাজী মাহবুব হাসাস
ইবুক প্রকাশক: সেই বই
সুপ্রজ্ঞা অনুবাদ উদ্যোগ

https://sheiboi.com/Book/BookDetails?bookId=2804

91298737_3609181449155962_1021014361637912576_n
দ্য সেলফিশ জিন ইবুক

প্রকাশিত কিছু অনুবাদ

ইবুক হিসাবে Sheiboi অ্যাপে এখন পাওয়া যাচ্ছে বিজ্ঞানের দর্শন, ইতিহাস আর বিবর্তন নিয়ে চারটি গুরুত্বপূর্ণ বইয়ের অনুবাদ:

রিচার্ড ডকিন্স:
দ্য সেলফিশ জিন
দ্য গড ডিল্যুশন
দ্য ম্যাজিক অব রিয়েলিটি (বাস্তবতার জাদু)

জেরি কয়েন:
হোয়াই ইভোল্যুশন ইজ ট্রু ( বিবর্তন কেন সত্য)

অনুবাদ: কাজী মাহবুব হাসান

#দ্য_সেলফিশ_জিন #বিবর্তন #রিচার্ড_ডকিন্স #অনুবাদ #বিজ্ঞান #দ্য_গড_ডিল্যুশন #দ্য_ম্যাজিক_অব_রিয়েলিটি #জেরি_কয়েন #বিজ্ঞান_দর্শন #বিজ্ঞান_ইতিহাস #কাজী_মাহবুব_হাসান

সেইবই অ্যাপ থেকে ডাউনলোড করতে সেইবই অ্যাপ এ লগ ইন করুন, এরপর অ্যাপ এর “Recent release” ট্যাব অথবা “Book store” ট্যাবে গিয়ে ডাউনলোড করুন।

*সেইবই অ্যাপটির ডাউনলোড লিংক:

গুগল প্লে স্টোর – https://play.google.com/store/apps/details?id=raven.reader

অ্যাপল অ্যাপ স্টোর https://itunes.apple.com/us/app/sheiboi/id976937372?mt=8

 

52532773_2490295164377935_5147229459115409408_o
প্রকাশিত কিছু অনুবাদ

ইয়োহানেস ভারমিয়ের: নিরাভিমান সৌন্দর্য দেখার চোখ..

( গ্রেট থিংকার্স সিরিজ থেকে পরীক্ষামূলকভাবে: আসমা সুলতানা ও কাজী মাহবুব হাসান)

girl-with-a-pearl-earring-5(Girl with a Pearl Earring c. 1665)

মিথ্যা গ্ল্যামার বা চাকচিক্যপূর্ণ মোহিনী সৌন্দর্যে সম্পৃক্ত একটি পৃথিবীতে আমরা বাস করি। বাস্তবিকভাবে, সমস্যাটির মূল কিন্তু গ্ল্যামারে নয়, বরং সেই সব বিষয়গুলোতে, যেগুলোকে গ্ল্যামারাস বলে বিবেচনা করবো বলে আমরা সামষ্টিকভাবে ঐক্যমতে পৌছেছি। অবশ্যই  এই গ্ল্যামারের পুরো ধারণাটিকে আমাদের জীবন থেকে নিশ্চিহ্ন করার মধ্যে কোনো অগ্রগতি হবে না। এর পরিবর্তে বরং আমাদের যা করা প্রয়োজন সেটি হচ্ছে আমাদের প্রশংসা আর উত্তজেনাগুলো আরো প্রজ্ঞার সাথে সেই সব জিনিসগুলোর প্রতি নির্দেশিত করা, যেগুলো আসলেই মর্যাদা পাবার যোগ্যতা রাখে।

শিল্পীরা মৌলিক যে কাজটি আমাদের জন্যে করতে পারেন, সেটি হচ্ছে এই গ্ল্যামারের স্পটলাইটি সবচেয়ে সেরা, – ও সবচেয়ে সহায়ক দিকে – ঘুরিয়ে দিতে পারেন। তারা সেই জিনিসগুলো শনাক্ত করতে পারেন, আমাদের যা উপেক্ষা করার প্রবণতা আছে, কিন্তু আদর্শিকভাবেই আমাদের যা অনেক বেশী গুরুত্ব দেয়া উচিৎ। এবং যে পেলবতা, সৌন্দর্য আর প্রজ্ঞার সাহায্যে তারা সেইসব জিনিসগুলো আঁকেন, আমরাও সেই জিনিসগুলোর সত্যিকার মূল্য অনুধাবন করতে শিখি।

Continue reading “ইয়োহানেস ভারমিয়ের: নিরাভিমান সৌন্দর্য দেখার চোখ..”

ইয়োহানেস ভারমিয়ের: নিরাভিমান সৌন্দর্য দেখার চোখ..