রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, শেষ পর্ব

ছবি: শিল্পী আসমা সুলতানা)

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, তৃতীয় পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, চতুর্থ পর্ব

 

ক্লাচের আকার সংক্রান্ত ল্যাক এর তত্ত্ব পিতামাতার দৃষ্টিভঙ্গী দিয়ে কোনটি সবচেয়ে উপযুক্ত সেটি বিবেচনা করে। আমি যদি কোন মা সোয়ালো হয়ে থাকি, আমার দৃষ্টিভঙ্গী থেকে সবচেয়ে উপযুক্ত ক্লাচ সাইজ হবে, ধরুন পাচ।কিন্তু আমি যদি শিশু সোয়ালো হয়ে থাকি,তাহলে আমার জন্য উপযুক্ত ক্লাচ সাইজ হবে আরো ছোট কোন সংখ্যা, শর্ত শুধু আমিও তাদের একজন হবো। পিতামাতার একটি নির্দিষ্ট পরিমান পিতামাতার বিনিয়োগ আছে, যা সে চায় তার পাচটি সন্তানের মধ্যে সমানভাবে বন্টন করতে, কিন্তু প্রতিটি শিশু তাদের নায্য প্রাপ্য এক পঞ্চমাংশভাবে আরো বেশী দাবী করে। কোকিলের ব্যতিক্রম, সে পুরোটা চায় না, কারন সে অন্য ভাইবোনদের সাথে জীনগতভাবে আত্মীয়তার সম্পর্ক বহন করে।কিন্তু সে এক পঞ্চমাংশ ভাগের বেশী পরিমানে চায়। সে এক চতুর্থাংশ ভাগ অনায়াসে নিশ্চিৎ করতে পারে, নীড় থেকে একটি ডিম ছুড়ে ফেলে দিয়ে। জীনের ভাষায় অনুবাদ করলে, একটি কোন জীন যা ভাতৃহত্যার জন্য দায়ী, কল্পনা করা সম্ভব যে জীন পুলে ছড়িয়ে পড়বে কারন এর ১০০ শতাংশ সম্ভাবনা আছে ভাতৃহত্যাকারী কোন প্রানী সদস্যর শরীরে থাকার। কিন্তু মাত্র ৫০ শতাংশ সম্ভাবনা আছে এই ভাতৃহত্যার শিকার কোন সদস্যর শরীরে থাকার।

এই তত্ত্বটির মুল বিরোধিতা হচ্ছে যে খুবই কঠিন বিশ্বাস করা যে কেউই এই অশুভ আচরণ দেখবেন না যদি এটি সত্যি ঘটে। আমার কাছে কোন বিশ্বাসযোগ্য ব্যাখ্যা নেই এর।বহু ধরনের সোয়ালো আছে সারা পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে।আমরা জানি যে সোয়ালোদের স্প্যানিশ গ্রুপ কিছু কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে যেমন বৃটিশ সোয়ালোদের থেকে ভিন্ন।বৃটিশ সোয়ালোদের মত স্প্যানিশ সোয়ালোদের উপর একই মাত্রার নিবিড় কোন গবেষনা হয়নি এবং আমার মনে হয় এটি সম্ভাব্য যে ভাতৃহত্যা সেখানেও ঘটে কিন্তু বিষয়টি খেয়াল করা হয়নি।

Continue reading “রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, শেষ পর্ব”

Advertisements
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, শেষ পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, চতুর্থ পর্ব


(ছবি: শিল্পী আসমা সুলতানা)

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, তৃতীয় পর্ব

 

প্রজন্মের যুদ্ধ

কোন একটি একক প্রানীকে একক সারভাইভাল মেশিন হিসাবে রুপকটা যদি ব্যবহার করি, যেখানে সারভাইভাল মেশিন এমনভাবে আচরন করে যেন এর একটি উদ্দেশ্য আছে জীনদের সুরক্ষা করার জন্য, আমরা কোন পিতামাতা ও সন্তানদের মধ্যে সংঘর্ষটি নিয়ে কথা বলতে পারি, প্রজন্মদের মধ্যে কোন একটি দ্বন্দ। এই যুদ্ধটা সুক্ষ্ম ধরনের, এবং কোন ধরনের প্রচলিত নিয়ম দ্বারা এটি আবদ্ধ নয় কোন দিকেই। একটি শিশু কোন সুযোগই নষ্ট করবে না প্রতারিত করার জন্য। সে যতনা তারও বেশী সে নিজেকে ক্ষুধার্ত হিসাবে ভান করবে, হয়তো তার যা বয়স তার চেয়েও ছোট সাজার ভান করবে। এটি অনেক ছোট আর দুর্বল তার পিতামাতাকে শারীরিকভাবে চাপ প্রয়োগ করার জন্য, কিন্তু তার হাতে আছে এমন সব মনোজাগতিক অস্ত্র সে ব্যবহার করবে: মিথ্যা বলা, প্রতারণা করা, নিজের স্বার্থে ব্যবহার করা, ঠিক সে পয়েন্ট অবধি, যখন সে তার আত্মীয়দের শাস্তি দিচ্ছে তাদের মধ্যে জীনগত সম্পর্ক যতটুকু অনুমতি দেয় তারচেয়ে বেশী। পিতামাতা, আবার অন্যদিকে, অবশ্যই সতর্ক হতে হবে প্রতারণা আর ছলনাগুলোর প্রতি এবং অবশ্য চেষ্টা করবে যেন বোকা না বনে যায় সহজে। এটি মনে হতে পারে একটি সহজ কাজ। যদি পিতামাতা জানে যে এর সন্তান এর মিথ্যা বলার সম্ভাবনা আছে সে আসলে কতটা ক্ষুধার্ত সে বিষয়ে, সে হয়তো এমন কোন কৌশল প্রয়োগ করতে পারে, যে একটি নির্দিষ্ট পরিমানই খাওয়াবে তার বেশী নয়, এমনকি যদিও শিশুটি চিৎকার করে যেতে থাকে। এর একটি সমস্যা হচ্ছে যে শিশুটি হয়তো মিথ্যা কিছু বলছে না, এবং যদি এটি মারা যায় না খেতে পাবার কারনে তাহলে বাবা মা এর কিছু মুল্যবান জীন হারাবে।

বুনো পাখিরা মারা যেতে পারে মাত্র কয়েকঘন্টা না খেয়ে থাকলে। এ জাহাভী (আমোৎস জাহাভী : ইসরাইলের বিবর্তন জীববিজ্ঞানী)  প্রস্তাব করেছেন যে একটি সুনির্দিষ্ট নিষ্ঠুর শিশুদের ব্ল্যাকমেইল এর: শিশুরা এমনভাব চিৎকার করে যেমন এটি নীড়ের দিকে ইচ্ছা করে শিকারী প্রানীদের দৃষ্টি আকর্ষন করে। শিশুটি যেন বলছে, শিয়াল, শিয়াল, আসলে আমাকে শিকার করো। আর যে একটি মাত্র উপায়ে পিতামাতা তাকে চুপ করাতে পারে তাহলো একে খাওয়ানো। সুতরাং শিশু তার নায্যভাবে যতটুকু খাদ্য পাবার কথা ছিল তারচেয়ে বেশী পায়, তবে তার ঝুকি বাড়িয়ে সেই মুল্য পরিশোধ করতে হয়েছে। এই নিষ্ঠুর কৌশলের নীতি একই রকম সেই হাইজাকারের মত, যে কিনা কোন উড়েোজাহাজ উড়িয়ে দেবার জন্য হুমকি দিচ্ছে তার নিজেকে সহ, যদি না তাকে মুক্তিপন দেয়া না হয়। আমি সন্দিহান এটি আদৌ কখনো বিবর্তনের সুবিধা পেতে পারে কিনা, শুধু এই কারন না যে তারা ‍খুবই নিষ্ঠুর বরং আমার সন্দেহ ব্ল্যাকমেইল করা কোন সন্তানের কি আসলেই কোন উপকার হয়। কারন তার হারাবার বহু কিছু আছে যদি আসলেই কোন শিকারী প্রানী আক্রমন করে। বিষয়টি স্পষ্ট যখন একটি মাত্র বাচ্চা থাকে, যে বিষয়টি নিয়ে জাহাভী নিজে গবেষনা করেছেন। তার মা তার জন্য ইতিমধ্যে যত কিছু বিনিয়োগ করুক না কেন, তার নিজের জীবনের মুল্য তারপরও তার বেশী দেয়া উচিৎ, তার মা যতটা মুল্য দেয় তারচেয়ে বেশী, কারন তার মা শুধু তার অর্ধেক পরিমান জীন বহন করে। উপরন্তু, এই কৌশলটি কোন সুফল দেবে না এমনকি যদি ব্ল্যাকমেইলার হয়ে থাকে সেই ক্লাচের সবচেয়ে ঝুকিপুর্ণ শিশু, তারা সবাই একই নীড়ের বাসিন্দা, যেহেতু ব্ল্যাক মেইলার এর ৫০ শতাংশ জীন এর বাজি আছে তার প্রতিটি হুমকির মুখে থাকা ভাই বোনদের উপর যেমন ১০০ শতাংশ বাজী তার নিজের ধারন করা জীন এর সাথে। আমি মনে করি তত্ত্বটি হয়তো ভাবা যেতে পারে কাজ করে যদি মুল শিকারী প্রানীর এমন কোন প্রবণতা থাকে যে পাখির নীড়ের সবচেয়ে বড় বাচ্চাটিকে প্রথম ধরে নিয়ে যায়। তাহলে হয়তো আকারে ছোট শিশুদের জন্য লাভজনক হবে কোন শিকারী প্রানীকে ডাকাকে হুমকি হিসাবে ব্যবহার করার জন্য, কারন এটি তাকে অতিরিক্ত বেশী কোন ঝুকির মধ্যে ফেলবে না। এটি তুলনা করা যেতে পারে, আপনার ভাই এর মাথায় পিস্তল ঠেকানোর মত, নিজেকে বোমা মেরে উড়িয়ে দেবার হুমকি দেবার বদলে। আরো সম্ভাব্য এই ব্ল্যাকমেইল করার কৌশল হয়তো কোন শিশু কোকিলের স্বার্থ রক্ষা করে।

Continue reading “রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, চতুর্থ পর্ব”

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, চতুর্থ পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, তৃতীয় পর্ব

sfg
(ছবি: শিল্পী আসমা সুলতানা)

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব

প্রজন্মের যুদ্ধ

এই মুহুর্তটি মনে হয় উত্তম আরো একটি বিস্মকর প্রপঞ্চর বিষয়টি উল্লেখ করার জন্য, যা পরিচিত রজোনিবৃত্তি বা মেনোপজ নামে । মেনোপজ হচ্ছে মধ্য বয়সে, বরং হঠাৎ করে মানব নারীর প্রজনন উর্বরতার সমাপ্তি।আমাদের প্রাচীন উত্তরসুরীদের মধ্যে মেনোপজ তেমন সচরাচর দেখা যেত না, কারন বহু নারী সেই সময় অবধি বেচে থাকতেন না। কিন্তু তারপরও হঠাৎ করে নারীর জীবনের এই পরিবর্তন আর পুরুষের উর্বরতার ক্ষেত্রে ধীর পরিবর্তন ইঙ্গিত করে, মেনোপজ প্রক্রিয়াটিতে কোন কিছু আছে যাকে আমরা বলতে পারবো জীনগত ভাবে পুর্বপরিকল্পিত – বা বলা যায় একটি অভিযোজন। বরং বেশ কঠিন এটি ব্যাখ্যা করা। প্রথমে দৃষ্টিতে আমরা আশা করি যে কোন নারী তার মুত্যুর আগ অবধি সন্তান ধারন করা অব্যাহত রাখবে, এমনকি বয়স বাড়ার সাথে সাথে তার জন্ম দেয়া কোন বাচ্চা যে বাচবে সেই সম্ভাবনাটাও কমতে থাকে। নি্শ্চয়ই মনে হতে পারে কাজটি করার প্রচেষ্টা অবশ্যই লাভজনক, তাই না ? কিন্তু আমরা অবশ্যই মনে রাখবো সে তার নাতি নাতনীদেরও জীনগতভাবে আত্মীয়, যদিও তার সন্তানদের সাথে যতটা, তার অর্ধেক মাত্রায়।

Continue reading “রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, তৃতীয় পর্ব”

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, তৃতীয় পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব

প্রজন্মের যুদ্ধ

পিতামাতার বিনিয়োগ সম্পুর্ণভাবে কোন একটি আদর্শ পরিমাপ না, কারন এটি বাড়তি গুরুত্বারোপ করে শতাংশর গুরুত্বের উপর, জেনেটিক সম্পর্কের বীপরিতে। আদর্শ পরিস্থিতিতে আমাদের উচিৎ হবে সাধারনীকৃত altruism investment বা পরার্থবাদীতার বিনিয়োগ পরিমাপটি ব্যবহার করার জন্য। সদস্য ‘ক’ হয়তো বলা যেতে পারে ‘খ’ এর উপর বিনিয়োগ করেছে, যখন ‘ক’, ‘খ’ এর টিকে থাকার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়, তার নিজের এবং অন্যদের প্রতি একই ভাবে বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে ক এর যোগ্যতার মুল্যর বিনিময়ে। সব মুল্য পরিশোধ সঠিক আত্মীয়তার পরিমাপে ওজন করা। এভাবে কোন পিতামাতার কোন একটি শিশুর প্রতি বিনিয়োগ আদর্শগত ভাবে পরিমাপ করতে হবে শুধূ মাত্র তাদের অন্য সন্তানদের প্রত্যাশিত আয়ুষ্কার হ্রাস করার অর্থেই না, বরং সেই হিসাবে আছে ভাইপো, ভাইঝি, সে নিজেও ইত্যাদি। অনেক ক্ষেত্রে যদি এটি মুল বিষয়টি এড়িয়ে চলা, কথার মার প্যাচে, এবং ট্রিভার্স এর পরিমাপ ব্যবহারিক ক্ষেত্রে ব্যবহার করার অনেক সুফল আছে। এখন যে কোন একটি নির্দিষ্ট প্রাপ্তবয়স্ক সদস্য,তার সারা জীবনে, এটি নির্দিষ্ট মোট পরিমান পিতামাতার বিনিয়োগ থাকে যা সে তার সন্তানদের জন্য বিনিয়োগ করতে পারে ( এবং অন্যান্য আত্মীয়ওরাও এবং সে নিজে, তবে খুব সরল কারনে আমরা শুধুমাত্র সন্তানদের কথাই বিবেচনা করবো এখানে); এটি প্রতিনিধিত্ব করে সর্বমোট পরিমান খাদ্য যে জড়ো করতে পারে বা তৈরী করতে পারে তার সারাজীবনের শ্রমের বিনিময়ে, সেই সব ঝুকিগুলো যা সে প্রস্তুত নেবার জন্য এবং সব শক্তি আর পরিশ্রম যা সে ব্যবহার করতে পারে তার শিশুদের কল্যানে।

Continue reading “রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব”

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন এর অষ্টম অধ্যায় ব্যাটল অফ দি জেনারেশনস এর অনুবাদ: প্রথম পর্ব (প্রথম ড্রাফট)

প্রজন্ম যুদ্ধ:

আগের অধ্যায়ের শেষে করা প্রশ্নগুলোর উত্তর দেবার চেষ্টা করে আসুন আমরা এই অধ্যায়টি শুরু করি। তার সন্তানদের মধ্যে মায়েদের কি কোন বিশেষ পছন্দ থাকা উচিৎ, নাকি তার একইভাবে সব সন্তানদের প্রতি পরার্থবাদী আচরন করা উচিৎ? বিরক্তি মনে হতে পারে পাঠকদের এমন ঝুকি নিয়ে আমি আমরা প্রথাগত একটি সাবধানবানী আবার উল্লেখ করে নিতে চাই। প্রিয় বা বিশেষ পছন্দ শব্দটি কিন্তু আত্মগত কোন অনুভুতি জনিত অর্থ প্রকাশ করছে না এবং উচিৎ শব্দটাও কোন নৈতিক গুণবাচক অর্থ সংশ্লিষ্টতাও নেই।আমি একটি মা কে গন্য করছি একটি মেশিন হিসাবে, যা প্রোগ্রাম করা আছে তার ক্ষমতায় করা সম্ভব এমন সব কিছু করার জন্য, যেমন তার বহনকারী জীনগুলোর অনুলিপি প্রজন্মান্তরে হস্তান্তর যেন নিশ্চিৎ হয়। যেহেতু আমি ও আপনি মানুষ, যারা জানি সচেতন উদ্দেশ্য থাকলে কেমন অনুভুত হয়। সেকারনে আমার জন্য সুবিধাজনক উদ্দেশ্য সংশ্লিষ্ট ভাষা রুপকার্থে ব্যবহার করা, যা কিনা সারভাইভাল মেশিনগুলোর আচরন ব্যাখ্যা করতে সাহায্য করে।

ব্যবহারিক ক্ষেত্রে, কি বোঝাতে পারে যখন বলা হয় কোন একটি মায়ের তার সন্তানদের মধ্যে একটি সবচেয়ে প্রিয় সন্তান আছে? এর মানে হবে মা তার সন্তান প্রতিপালনের জন্য বরাদ্দকৃত সম্পদ তার সন্তানদের মধ্যে অসমভাবে বিনিয়োগ করবেন। কোন একটি মায়ের কাছে এই সম্পদ হতে পারে নানা কিছু। খাদ্য অবশ্যই একটি তার মধ্যে, এর সাথে যুক্ত আছে খাদ্য সংগ্রহ করার নিমিত্তে ব্যবহৃত সময় ও শক্তি, কারন এর জন্য মাকেও কিছু মুল্য পরিশোধ করতে হয়। শিকারী প্রানী থেকে সন্তানদের সুরক্ষা করার জন্য নেয়া ঝুকি আরো একটি সম্পদ যা মা খরচ করতে পারেন বা খরচ করতে অস্বীকৃতি জানাতে পারেন। সময় ও শক্তি যা নীড় বা ঘর বানানো আর রক্ষনাবেক্ষনে ব্যবহৃত হয়, জলবায়ুর নানা উপাদান থেকে রক্ষা এবং কোন কোন প্রজাতিতে শিশুদের শেখানোর জন্য ব্যবহৃত সময়, এই সবই হচ্ছে আসলে মুল্যবান সম্পদ যা কোন একটি পিতামাতা তার সন্তানের ভরনপোষনের জন্য বরাদ্দ করতে পারেন, সমানভাবে বা অসমভাবে, যেমনটি সে চায় বা তার পছন্দ অনুযায়ী।

Continue reading “রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব”

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব