রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, প্রথম পর্ব
রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব

প্রজন্মের যুদ্ধ

পিতামাতার বিনিয়োগ সম্পুর্ণভাবে কোন একটি আদর্শ পরিমাপ না, কারন এটি বাড়তি গুরুত্বারোপ করে শতাংশর গুরুত্বের উপর, জেনেটিক সম্পর্কের বীপরিতে। আদর্শ পরিস্থিতিতে আমাদের উচিৎ হবে সাধারনীকৃত altruism investment বা পরার্থবাদীতার বিনিয়োগ পরিমাপটি ব্যবহার করার জন্য। সদস্য ‘ক’ হয়তো বলা যেতে পারে ‘খ’ এর উপর বিনিয়োগ করেছে, যখন ‘ক’, ‘খ’ এর টিকে থাকার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়, তার নিজের এবং অন্যদের প্রতি একই ভাবে বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে ক এর যোগ্যতার মুল্যর বিনিময়ে। সব মুল্য পরিশোধ সঠিক আত্মীয়তার পরিমাপে ওজন করা। এভাবে কোন পিতামাতার কোন একটি শিশুর প্রতি বিনিয়োগ আদর্শগত ভাবে পরিমাপ করতে হবে শুধূ মাত্র তাদের অন্য সন্তানদের প্রত্যাশিত আয়ুষ্কার হ্রাস করার অর্থেই না, বরং সেই হিসাবে আছে ভাইপো, ভাইঝি, সে নিজেও ইত্যাদি। অনেক ক্ষেত্রে যদি এটি মুল বিষয়টি এড়িয়ে চলা, কথার মার প্যাচে, এবং ট্রিভার্স এর পরিমাপ ব্যবহারিক ক্ষেত্রে ব্যবহার করার অনেক সুফল আছে। এখন যে কোন একটি নির্দিষ্ট প্রাপ্তবয়স্ক সদস্য,তার সারা জীবনে, এটি নির্দিষ্ট মোট পরিমান পিতামাতার বিনিয়োগ থাকে যা সে তার সন্তানদের জন্য বিনিয়োগ করতে পারে ( এবং অন্যান্য আত্মীয়ওরাও এবং সে নিজে, তবে খুব সরল কারনে আমরা শুধুমাত্র সন্তানদের কথাই বিবেচনা করবো এখানে); এটি প্রতিনিধিত্ব করে সর্বমোট পরিমান খাদ্য যে জড়ো করতে পারে বা তৈরী করতে পারে তার সারাজীবনের শ্রমের বিনিময়ে, সেই সব ঝুকিগুলো যা সে প্রস্তুত নেবার জন্য এবং সব শক্তি আর পরিশ্রম যা সে ব্যবহার করতে পারে তার শিশুদের কল্যানে।

Continue reading “রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব”

রিচার্ড ডকিন্স এর দি সেলফিশ জীন: অষ্টম অধ্যায়, দ্বিতীয় পর্ব