জেরী কয়েন এর হোয়াই ইভোল্যুশন ইজ ট্রু : পঞ্চম অধ্যায় (দ্বিতীয় পর্ব)

2
 ছবি:  নিউট্রাল বিবর্তনের একটি স্কীমাটিক ডায়াগ্রাম ( বড় করে দেখার জন্য ক্লিক করুন);  ইলাসট্রেশন: Tommy Moorman

জেরী কয়েন এর হোয়াই ইভোল্যুশন ইজ ট্রু : পঞ্চম অধ্যায় ( দ্বিতীয় পর্ব)

(অনুবাদ প্রচেষ্টা: কাজী মাহবুব হাসান)

Why Evolution Is True: Jerry A. Coyne

প্রথম অধ্যায়
দ্বিতীয় অধ্যায় : প্রথম পর্ব  দ্বিতীয় পর্ব তৃতীয় পর্ব চতুর্থ পর্বশেষ পর্ব
তৃতীয় অধ্যায়: প্রথম পর্ব , দ্বিতীয় পর্ব , তৃতীয় পর্ব , শেষ পর্ব
চতুর্থ অধ্যায়: চতুর্থ অধ্যায়:  প্রথম পর্ব ; দ্বিতীয় পর্বশেষ পর্ব
পঞ্চম অধ্যায়:  প্রথম পর্ব

আরো একটি আলোচনা:  ন্যাচারাল সিলেকশন বা প্রাকৃতিক নির্বাচনকে যাচাই করে দেখার পরীক্ষা:

অধ্যায় ৫ : বিবর্তনের ইন্জিন

Life results from the non-random survival of randomly varying replicators. Richard Dawkins

বিবর্তন..  যখন প্রাকৃতিক নির্বাচন এর মাধ্যমে ঘটে না ‍: 

এবার সংক্ষেপে একটু অন্য প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা করা যায়, কারন আমাদের অনুধাবন করার প্রয়োজন আছে যে বিবর্তনীয় পরিবর্তনের জন্য শুধু প্রাকৃতিক নির্বাচনই একমাত্র উপায় না। বেশীর ভাগ জীববিজ্ঞানী বিবর্তনকে সংজ্ঞায়িত করেন কোন একটি জনসংখ্যায় অ্যালীলদের  ( কোন জীনের বিকল্প সংষ্করণ) আনুপাতিক হারের পরিবর্তনকে। যেমন ধরুন, জীনের ’হালকা রঙ’ এর উপস্থিতির হার যখন কোন ইদুর জনগোষ্ঠীতে বৃদ্ধি পায়, সেই জনগোষ্ঠীতে তাদের চামড়ার রং বিবর্তিত হয়। কিন্তু এই পরিবর্তন অন্যভাবেও হতে পারে। প্রজাতির প্রতিটি সদস্যদের কোন একটি জীনের দুটি করে কপি থাকে, তারা হুবুহু একই হতে পারে আবার ভিন্নও হতে পারে। যখনই যৌন প্রজনন হচ্ছে, পিতা বা মাতার কোন একটি জীন জোড়ার একটি করে সদস্য পিতা কিংবা মাতার একই জীনের অন্য কোন সদস্যর সাথে তাদের সন্তানদের শরীরে প্রবেশ করে। পিতা বা মাতার জীনগুলোর কোন সদস্য পরবর্তী প্রজন্মে হস্তান্তরিত হবে সেটা একটা টসের মত। আপনার যদি AB রক্তের গ্রুপ হয়, এবং(আপনার একটি A অ্যালীল ও একটি B অ্যালীল থাকে) আর আপনি যদি একটি সন্তানের জন্ম দেন, তাহলে শুধু শতকরা ৫০ শতাংশ সম্ভাবনা আছে সে আপনার A অ্যালীল বা B অ্যালীল পাবে। সুতরাং এক সন্তানের পরিবারে নিশ্চিৎভাবে আপনার কোন না কোন একটি অ্যালীল অবশ্যই হারিয়ে যাবে চিরতরে। মুল ফলাফল হচ্ছে, প্রতিটি প্রজন্মে, পিতা মাতার জীনগুলো একটি লটারীতে অংশ নেয়, যে লটারীর প্রাইজ হচ্ছে পরবর্তী প্রজন্মে হস্তান্তরিত হওয়ার সুযোগ। যেহেতু সন্তানের সংখ্যা সীমিত, সন্তানের শরীরে জীনের উপস্থিতির হার তার পিতা মাতার শরীরে জীনের উপস্থিতির হার একই না। এই জীনগুলো স্যাম্পলিং বা নমুনা বাছাই ঠিক পয়সা দিয়ে টস করার মত। যদি শতকরা ৫০ ভাগ সম্ভাবনা আছে যে কোন টসে একটি নির্দিষ্ট একটি ফলাফল ( যেমন হেড কিংবা টেইল) পাবার, আপনি যদি অল্প কয়েকবার টস করেন তাহলে বেশ বড় একটি সুযোগ আছে আপনি এই প্রত্যাশিত ফলাফল থেকে কিছুটা ভিন্ন ফল পাবেন ( চারবার টসে যেমন আপনার ১২ শতাংশ সুযোগ আছে, হয় হেড বা টেইল পাবার); এবং সেভাবে বিশেষ করে কোন একটি ছোট জনগোষ্ঠীতে, বিভিন্ন অ্যালীলগুলো আনুপাতিক হার শুধুমাত্র চান্সের মাধ্যমে পরিবর্তিত হতে পারে। এবং নতুন মিউটেশন এর মধ্যে তৈরী হতে পারে এবং তাদের নিজেদের উপস্থিতির হারও ওঠা নামা করতে পারে এই  এলোমেলো টস বা র‌্যানডোম স্যাম্পলিং এর কারণে। এবং ধীরে ধীরে এই ’র‌্যানডোম ওয়াক’ এমন কি কোন জীনের উপস্থিতি কোন জনগোষ্ঠীতে স্থির করে দিতে পারে (অর্থাৎ উপস্থিতির হার শতকরা ১০০ শতাংশ )বা বিকল্পভাবে, পুরোপুরি হারিয়ে যেতে পারে।

সময়ের সাথে সাথে এই সব জীনের উপস্থিতির হার এর  র‌্যানডোম পরিবর্তনকে বলে জেনেটিক ড্রিফট। এটিও বিবর্তনের একটি বৈধ উপায়, যেহেতু এটিও সময়ের সাথে সাথে কোন অ্যালীলদের উপস্থিতির হারকে পরিবর্তন করে কিন্তু এটি প্রাকৃতিক নির্বাচনের মাধ্যমে সৃষ্টি হয়না। বিবর্তনের একটি উদহারন  যা কিনা এই ড্রিফট এর মাধ্যমে হতে পারে যেমন, কোন রক্তের গ্রুপের অস্বাভাবিক উপস্থিতি ( যেমন ABO সিস্টেম) আমেরিকার ওল্ড অর্ডার আমিশ  ( Old Order Amish) ও ডাঙ্কার (Dunker) ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর মধ্যে। এগুলো হচ্ছে ক্ষুদ্র, বিচ্ছিন্ন ধর্মীয় গ্রুপ যাদের সদস্যরা নিজেদের মধ্যে বিবাহ করে- দ্রুত জেনেটিক ড্রিফট এর  মাধ্যমে দ্রুত বিবর্তনের জন্য যেটি আদর্শ একটি পরিস্থিতি।

স্যাম্পলিং বা নমুনা অন্বেষনের কোন দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে যখন কোন একটি জনগোষ্ঠী শুরু করে অল্প কিছু অভিবাসী দ্বারা, যেমন হতে পারে যখন কোন একটি প্রজাতি সদস্যের ছোট একটি দল নতুন কোন এলাকায় বসতি গড়ে। আদিবাসী অ্যামেরিকার জনগোষ্ঠীর মধ্যে B  রক্তের গ্রুপ তৈরী কারী জীনের প্রায় পুরোপুরি অনুপস্থিতি, যা ইঙ্গিত করছে একটি ক্ষুদ্র মানব গোষ্ঠীর মধ্যে যে জীনটা হারিয়ে গেছে যারা এশিয়া থেকে ১২০০০ বছর আগে এসে উত্তর আমেরিকায় বসতি গেড়েছিল।

জেনেটিক ড্রিফট এবং প্রাকৃতিক নির্বাচন দুটো প্রক্রিয়া জীনগত পরিবর্তন ঘটায়, যা আমরা শনাক্ত করতে পারি বিবর্তন হিসাবে। কিন্তু গুরুত্বপুর্ণ একটি পার্থক্যও কিন্তু আছে। ড্রিফট একটি র‌্যানডোম প্রক্রিয়া, অপরদিকে প্রাকৃতিক নির্বাচন র‌্যানডোম প্রক্রিয়ার ঠিক বীপরিত । জেনেটিক ড্রিফট কোন জীন অ্যালীলের উপস্থিতির হার বাড়িয়ে দিতে পারে এর বাহকের তা কোন কাজে আসুক আর না আসুক। অপরদিকে প্রাকৃতিক নির্বাচন, সবসময় ক্ষতিকর জীন অ্যালীলগুলো ছাকুনী দিয়ে বাতিল করে দিচ্ছে, উপকারী অ্যালীলের উপস্থিতির হার বাড়িয়ে।

1
ছবি:  প্রাকৃতিক নির্বাচনের একটি স্কীমাটিক ডায়াগ্রাম ( বড় করে দেখার জন্য ক্লিক করুন);  ইলাসট্রেশন:Tommy Moorman

পুরোপুরিভাবে র‌্যানডোম বা নির্বিকার একটি প্রক্রিয়া হিসাবে ড্রিফট কোন অভিযোজনীয় বৈশিষ্টের বিবর্তনের কারন হয় না। এটা কখনোই পারে না একটি চোখ কিংবা পাখির ডানার মত কিছু সৃষ্টি করতে। যার জন্য প্রয়োজন র‌্যানডোম নয়, খুব সুনির্দিষ্ট একটি প্রক্রিয়া, প্রাকৃতিক নির্বাচন। ড্রিফট যা ’করতে’ পারে তা হলে সেই সব বৈশিষ্ট সমুহের বিবর্তন ঘটাতে যা কোন একটি জীবের জন্য  উপকারীও না আবার অপকারীও না। সদাসতর্ক ডারউইন নিজেই এই ধারণাটি তার The Origin এ ব্যাখ্যা করেছেন:

এই উপযোগী বৈশিষ্টগুলোর সংরক্ষন এবং ক্ষতিকর বৈশিষ্টগুলোর বর্জন প্রক্রিয়া, যা আমি বলছি প্রাকৃতিক নির্বাচন। যে বৈশিষ্টগুলো উপকারী বা ক্ষতিকর কোনটাই না, তারা প্রাকৃতিক নির্বাচন দ্বারা প্রভাবিত হবে না এবং তারা তাদের অবস্থানে থেকে যাবে পরিবর্তনশীল কোন বৈশিষ্ট হিসাবে, যা আমরা হয়তো প্রজাতিদের মধ্যে দেখি, যাদের বলা হয় পলিমরফিক।

আসলেই, জেনেটিক ড্রিফট অভিযোজন সৃষ্টির জন্য ক্ষমতাহীনই শুধু না, কখনো প্রাকৃতিক নির্বাচনকে সমস্যায় ফেলে দেয়, বিশেষ করে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীতে,  যেখানে সাম্পলিং ইফেক্টটি এতই বিশাল হতে পারে যে এটি ক্ষতিকর জীন অ্যালিলগুলোর ‍উপস্থিতির হার বাড়িয়ে দেয়, এমন কি যখন প্রাকৃতিক নির্বাচন এর বীপরিত মুখে কাজ করে যাচ্ছে। নিঃসন্দেহে এটি অবশ্যই সেই কারন কেন আমরা অনেক উচু হারে জীনগত অসুখের দেখতে পাই বিচ্ছিন্ন জনগোষ্ঠীতে, যেমন উত্তর সুইডেন এ গাউসার ডিজিজ (Gaucher’s disease), ল্যুসিয়ানার কাজুন দের মধ্যে টে-স্যাখ ডিজিজ (Tay-Sachs disease) এবং ট্রিষ্টাণ ডা কুনহা দ্বীপের বাসিন্দাদের মধ্যে রেটিনাইটিস পিগমেন্টোসা (retinitis pigmentosa);

 কারন ডিএনএ র কিছু প্রকরণ বা প্রোটিন অনুক্রমের ভিন্নতা হয়তো, যেমনটি ডারউইন মন্তব্য করেছিলেন, উপকারী না আবার ক্ষতিকরও না ( অথবা, আমরা তাদের নিউট্রাল বা নিরপেক্ষ বলতে পারি), এই প্রকরণগুলো বিশেষভাবে বিবর্তিত হবার সম্ভাবনা ড্রিফট এর মাধ্যমে। যেমন কিছু মিউটেশন, সেই জীনের সংকেত করা প্রোটিনটির অ্যামাইনো অ্যাসিড অনুক্রমে কোন প্রভাব ফেলেনা, সুতরাং এর বাহকের ফিটনেস এ কোন সমস্যার কারণ হয়না। একই ভাবে বলা যেতে পারে এটি সত্য অকার্যকর সিউডোজিনগুলোর ব্যাপারে-পুরোনো জীনের ভগ্নাবশেষ যা এখনও জীনোমের রয়ে গেছে। এই সব জীনের কোন মিউটেশন এর বাহকের উপর কোন প্রভাব ফেলে না, সেকারনে বিবর্তিত হতে পারে জেনেটিক ড্রিফট এর মাধ্যমে।

জীন পর্যায়ের অনেক বিবর্তন তাহলে, যেমন  ডিএনএ অনুক্রমের কিছু পরিবর্তন, তাহলে নির্বাচনের বদলে বরং ড্রিফট এর প্রতিনিধিত্ব করে। এবং বাহ্যিক অনেক বৈশিষ্টও ড্রিফট এর মাধ্যমে বিবর্তিত হতে পারে, বিশেষ করে যদি তার প্রজননের উপর কোন প্রভাব না ফেলে। যেমন বিভিন্ন প্রজাতির উদ্ভিদের পাতার আকৃতি, যেমন ধরুন ওক আর মেপল পাতার মধ্যে ভিন্নতা, একসময় প্রস্তাব করা হতো নিরপেক্ষ বলে, যা বিবর্তিত হয়েছে জেনেটিক ড্রিফট এর মাধ্যমে। কিন্তু কোন একটি বৈশিষ্টর যে কোন নির্বাচনী সুবিধা নেই সেটা প্রমান করা খুবই কঠিন কাজ। এমনকি খুবই সামান্যতম কিছু হলেও, যা বাস্তব সময়ে কোন কোন জীববিজ্ঞানীদের পক্ষে মাপা বা দেখা সম্ভব নয় কিন্তু বহু যুগের ব্যবধানে সেটি হয়তো গুরুত্বপুর্ণ কিছু নির্বাচনী সুবিধা দেয়।

জেনেটিক ড্রিফট ও নির্বাচনের মধ্যকার আপেক্ষিক গুরুত্বর বিষয়টি জীববিজ্ঞানীদের মধ্যে এখনও বেশ বিতর্কের কারণ। যখন আমরা কোন সুস্পষ্ট অভিযোজন লক্ষ্য করি, যেমন উটের কুজ, আমরা স্পষ্টভাবে নির্বাচনের চিহ্ন দেখি। কিন্তু যে বৈশিষ্টগুলোর বিবর্তন আমরা বুঝি না সেটি কারন জেনেটিক ড্রিফট এর বদলে বরং আমাদের অজ্ঞতাই হয়তো দায়ী। যাই হোক আমরা জানি জেনেটিক ড্রিফট অবশ্যই ঘটে, কারন কোন একটি নির্দিষ্ট সীমিত জনসংখ্যার প্রজনেনর সময় সর্বদা একটি স্যাম্পলিং প্রভাব থাকে। ড্রিফট হয়তো বা ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর বিবর্তনে গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা রাখে, যদিও আমরা আমরা অল্প কিছু উদহারন ছাড়া আর কোন কিছু এ বিষয়ে ইন্গিতবাহী কিছু পাই না।

________________________________ চলবে

Advertisements
জেরী কয়েন এর হোয়াই ইভোল্যুশন ইজ ট্রু : পঞ্চম অধ্যায় (দ্বিতীয় পর্ব)

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s