The Philosophical Breakfast Club

philosophical-breakfast-club-final-jacket

কিছুটা দেরী হলেও আমি অবশেষে বিজ্ঞান ইতিহাসবিদ ও দার্শনিক ল্যরা স্নাইডার এর অসাধারণ বই , The Philosophical Breakfast Club: Four Remarkable Friends who Transformed Science and Changed the World, বইটি খুজে পেলাম। তবে তার আগে সেখান থেকেই বিজ্ঞানের ইতিহাসের একটি গুরুত্বপুর্ণ তথ্য জেনে নেই। ১৮৩৩ সাল, জুন মাসের ২৪ তারিখ, he British Association for the Advancement of Science ( সংক্ষেপে ব্রিটিশ অ্যাসোসিয়েশন) এর তৃতীয় বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেদিন ছিল এই বার্ষিক সভার প্রথম দিন। সেদিন সেখানে একটি বিতর্ক হয়েছিল, ল্যরা স্নাইডার মনে করেন, সেই বিতর্কটি বিজ্ঞানের অনেক কিছু চিরকালের জন্য বদলে দিয়েছিল। সভা শুরু হবার কিছুক্ষনের মধ্যে একজন বয়স্ক মানুষ উঠে দাড়ালেন কিছু বলবেন বলে.. সবাই খানিকটা হতবাক হয়ে লক্ষ্য করলেন, মানুষটি দার্শনিক কবি স্যামুয়েল টেলর কোলরীজ (Samuel Taylor Coleridge), যাকে অনেকেই দীর্ঘদিন বাড়ির বাইরে কেউ আসতে দেখেননি। বিস্ময়ের আরো বাকী ছিল, যখন তিনি মুখ খুললেন..

সরাসরি ‍উপস্থিত সবাইকে লক্ষ্য করেই তিনি বললেন,

”আপনাদের অবশ্যই নিজেদেরকে প্রাকৃতিক দার্শনিক (natural philosophers) হিসাবে ডাকা বন্ধ করতে হবে।”

কোলরীজ এর মতে সত্যিকারের দার্শনিক তার মত মানুষরা যারা আর্ম চেয়ারে বসে কসমসের গভীর রহস্য নিয়ে ভাবেন। তারা ব্রিটিশ অ্যাসোসিয়েশনের এই সব পাকৃতিক দার্শনিকদের মত জীবাশ্ম খোজার জন্য গুহায় মাটির গর্তে সময় কাটান না বা নানা রাসায়নিক দ্রব্য আর বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেন না। কোলরীজের কথাটি ঠিক বুঝে উঠবার আগেই উপস্থিত সবাই খানিকটা উত্তেজিত হয়ে এর বিরুদ্ধে পাল্টা মতামত ছুড়ে দিতে লাগলো.. অভিযোগের সম্মিলিত কন্ঠস্বরকে খানিক নিয়ন্ত্রনে আসার পর, উঠে দাড়ালেন কেমব্রিজের এক তরুন স্কলার উইলিয়াম হিওয়েল (William Whewell), তিনি বেশ নম্রভাবেই কোলরীজের সাথে তার ঐক্যমত প্রকাশ স্বীকার করে নিলেন আসলেই এই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের নিজস্ব সঠিক কোন নাম নেই,

”যদি philosophers শব্দটিকে মেনে নেয়া হয়, অতিবিশাল আর উচ্চ ধারনাবাহী কোন প্রকাশকে .. তাহলে ‘artist’ শব্দটির মতই আমরা ‘scientist’ শব্দটা তৈরী করে নিতে পারি আমাদের ব্যবহারের জন্য।”

১৮০ বছর আগে, প্রথমবারের মত জনসমক্ষে উচ্চারিত হয়েছিল ‘scientist’ শব্দটি…

১৮৩৩ সালের আগে শব্দটি আসলেই ব্যবহৃত হয়নি, বিজ্ঞানীদের কি নামে ডাকা হতো এর আগে..আর এই মহুর্তের পর কি বদলে গিয়েছিল..? এর আগে যার প্রাকৃতিক বিশ্বকে জানার চেষ্টা করতো তারা ছিলেন প্রতিভাবান কিছু সৌখিন ব্যক্তি। ভেবে দেখুন গ্রামের কোন পাদ্রী বা কোন ভদ্রলোক, যিনি কীটপতঙ্গ আর জীবাশ্ম সংগ্রহ করেন, যেমন চার্লস ডারউইন কিংবা কোন অভিজাত ব্যক্তির সহচর, যেমন..ল্যান্ডসডাউনের জমিদারের সাহিত্য বিষয়ক সহচর, জোসেফ প্রিস্টলী, যিনি অক্সিজেন আবিষ্কার করেছিলেন। এই দিনের পর তারা সবাই চিন্হিত হলেন বিজ্ঞানী, পেশাজীবি হিসাবে যাদের কোন সত্য উদঘাটনের অস্ত্র ছিল নির্দিষ্ট বৈজ্ঞানিক পক্রিয়া, তাদের ছিল নির্দিষ্ট লক্ষ্য, নানা সমিতি এবং প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা।

আর এই বিল্পবের সুচনার উৎসে খুজে পাওয়া যায়, চার অসাধারণ ব্যক্তি, যারা ১৮১২ সালে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে জড়ো হয়েছিলেন..Charles Babbage, John Herschel, Richard Jones এবং William Whewell; তারা প্রত্যেকেই অসাধারণ মানুষ ছিলেন, ব্যাবেজ, প্রথম মেকানিকাল ক্যালকুলেটর আবিষ্কার করেছিলেন, জন হার্শেল দক্ষিন গোলার্ধের নক্ষত্রের ম্যাপ তৈরী করেছিলেন, অবসর সময় তার সখের বশেই ফটোগ্রাফীও আবিষ্কার করেছিলেন, রিচার্ড জোনস ছিলেন অন্যতম সেরা একজন অর্থনীতিবিদ যিনি কার্ল মাক্সকে অনুপ্রানিত করেছিলেন, আর হিওয়েল, Scientist শব্দটি ছাড়াও অ্যানোড, ক্যাথোড আর আয়ন শব্দগুলোর প্রবক্তা ছিলেন, জোয়ার ভাটা নিয়ে তিনি প্রথম একটি আন্তর্জাতিক বিজ্ঞানীদের গবেষনার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সেই সময়ে..

এই চারজনই ১৮১২ – ১৮১৩ সালে শীতে কেমব্রিজে রোজ দেখা করতেন সকালে প্রাতরাশের সময়… তাদের ভাষায় সেটি ছিল, philosophical breakfasts..তারা সেখানে বিজ্ঞান এবং বিজ্ঞানের আন্দোলন .. ১৭ শ শতাব্দীর নানা বৈজ্ঞানিক বিপ্লবগুলো নিয়ে আলোচনা করতেন। তারা বুঝেছিলেন,, আরো একটি বৈজ্ঞানিক বিপ্লবের সময় এসেছে, তারা চারজনই সেই বিল্পবকে তরান্বিত করার শপথ নিয়েছিলেন… মনে রাখতে হবে তারা তখনও ছাত্র.. তারা কিন্তু তাদের সেই স্বপ্নকে স্বপ্নই রাখেননি.. তাদের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠা বৈজ্ঞানিক সংঘটনের নানা কিছু চিরকালের জন্য বদলেও দিয়েছিল ……

আরো জানতে ল্যরা স্নাইডারের টেড লেকচারটি শুনুন….

Advertisements
The Philosophical Breakfast Club

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s