জ্যাকব ব্রনোস্কি এবং The Ascent of Man

For me science is an expression of the human mind, which seeks for unity under the chaos of nature as the writer seeks for it in the variety of human nature. Jacob Bronowski

জ্যাকব ব্রনোস্কির সাথে আমার প্রথম পরিচয় কার্ল সেগানের দি ড্রাগনস অব ইডেন এর ভুমিকায়। কার্ল সেগান সেখানে লিখেছিলেন :

Jacob Bronowski was one of a small group of men and women in any age who find all of human knowledge-the arts and sciences, philosophy and psychology-interesting and accessible. He was not confined to a single discipline, but ranged over the entire panorama of human learning. His book and television series, The Ascent of Man, are a superb teaching tool and a remarkable memorial; they are, in a way, an account of how human beings and human brains grew up together.

ব্রনোস্কি সম্বন্ধে আমাকে ভীষন উৎসাহী করে তুলেছিল কার্ল সেগানের এই শব্দগুলো;

জ্যাকব ব্রনোস্কির  The Ascent of Man বইটি এবং টেলিভিশন সিরিজটি দেখার সুযোগ হয়েছিল ২০০৪ এ মেলবোর্নে। সে এক আসাধারন অভিজ্ঞতা।অনেকের হয়তো মনে আছে কার্ল সেগানের অসাধারন Cosmos প্রামান্য চিত্রের ধারাবাহিকটি বাংলাদেশ টেলিভিশন এটি প্রচার করেছিল বহুদিন আগে।কার্ল সেগানের কসমস ধারাবাহিকটি তৈরীর অনুপ্রেরণা ছিল জ্যাকব ব্রনোস্কির The Ascent of Man । ১৩ পর্বের এই ধারাবাহিকটি শেষ হবার এক বছর পরই পৃথিবী থেকে হঠাৎ করেই বিদায় নেন ব্রনোস্কি।

ব্রনোস্কি সম্বন্ধে বলা হতো, তিনি এমন একজন মানুষ, যিনি সবকিছুই জানেন। ইংরেজী ভাষায় একটি শব্দ আছে এই বহু ক্ষেত্রে জ্ঞান ধারনকারী ভীষন প্রতিভাধর মানুষগুলোর জন্য, polymath; ব্রনোস্কি ছিলেন একজন পলিম্যাথ। মুলত গনিতজ্ঞ, ব্রনোস্কি বিচরণ করেছেন, জীববিজ্ঞান, বিজ্ঞানের ইতিহাস, দর্শনে, তিনি ছিলেন আবিষ্কারক, কবি এবং নাট্যকার; তবে তিনি সবচেয়ে বেশী পরিচিতি পেয়েছিলেন ১৯৭৩ সালে বিবিসির জন্য নির্মিত তার টেলিভিশন ধারাবাহিক প্রামান্য চিত্র The Ascent of Man এবং একই নামে সম্পুরক বইটির জন্য।

জন্ম সুত্রে পোল্যান্ডের অধিবাসী ব্রনোস্কি পরিবার জার্মানী হয়ে ১৯২০ সালে ইংল্যান্ডে এসেছিল । ব্রনোস্কির স্মৃতিকথা বলছে, ১২ বছর বয়সী ব্রণোস্কি তখন মাত্র দুটি ইংরেজী শব্দ বলতে পারতেন। অসাধারন মেধাবী ব্রনোস্কি স্কুলের পাঠ শেষ করে কেমব্রিজে পড়ার সুযোগ পান। এবং এখান থেকে তিনি গনিতে স্নাতক হন, সিনিয়র র‌্যাঙলার হিসাবে। র‌্যাঙলার বলা হয় সেই সব ছাত্রকে যারা স্নাতক পর্যায়ে কেমব্রিজে তৃতীয় বর্ষে গনিতে প্রথম শ্রেনীর অনার্স পায়, আর সিনিয়র র‌্যাঙলার হচ্ছে সেই ছাত্র, যে সবচেয়ে বেশী নম্বর পায়।

১৯৩৫ এ গনিতে পিএইচডি শেষ করে শিক্ষকতা শুরু করেন ব্রণোস্কি। এই সময় তার যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও বেশ কিছু গুরুত্বপুর্ণ পদে যোগ দেবার পথ আটকে দিয়েছিল ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা MI5 তাকে ব্রিটেনের জন্য হুমকি হিসাবে চিহ্নিত করে ; দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হবার পর পরিস্থিতি বদলে যায়, যুক্তরাজ্যের হোম সিকিউরিটির অপারেশনস রিসার্চে কাজ শুরু করেন তিনি, এখানে তিনি রয়্যাল এয়ারফোর্সের জন্য বোমা ফেলার স্ট্র্যাটেজির একটি গানিতীক মডেল তৈরী করেছিলেন।

হিরোশিমা নাগাসাকিতে ‍পারমানবিক বোমার প্রভাব গুলো রেকর্ড করার ব্রিটিশ টীমের  সদস্য ছিলেন। জাপান থেকে ফেরার পর তিনি তার বিখ্যাত রিপোর্ট  The Effects of Atomic Bombs at Hiroshima and Nagasaki প্রকাশ করেন, এই অভিজ্ঞতা তাকে ভীষন প্রভাবিত করেছিল, এরপর আর আগের মত তিনি গনিতের ক্ষেত্রে ফিরে যাননি। তার আগ্রহের ক্ষেত্র হয় বিজ্ঞানের নৈতিকতা এবং পরে জীববিজ্ঞান।

এসময় অবসরে লেখা তার দ্বিতীয় বইটি প্রকাশিত হয়, William Blake, a man without a mask; ( তার প্রথম প্রকাশিত বই The Poet’s Defence, যেখানে তিনি বিজ্ঞানের সত্য আর কবিতার সত্যর মধ্যে একটি সম্পর্ক  খোজার চেষ্টা করেছিলেন)। ১৯৫০ সালে পরবর্তী কর্মস্থল  যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল কোল বোর্ডে তার রিসার্চের ক্ষেত্র ছিল ধোয়াহীন জ্বালানী, প্রথম দিক কার সেই গবেষনার ফসল এখনো পরিচিত  Bronowski’s Bricks হিসাবে।

য় জীববিজ্ঞানের গবেষনায় প্রথম সুযোগটি আসে যখন তার গানিতীক ও পরিসংখ্যানের দক্ষতাকে ব্যবহার করে তাকে অনুরোধ করা হয় টাউঙ্গ চাইল্ড ( দক্ষিন আফ্রিকার টাউঙ্গ শহরে একটি খনিতে খুজে পাওয়া Australopithecus africanus  প্রজাতির একটি শিশুর ফসিল খুলি) এর জীবাশ্মীভুত মাথার খুলি ব্যবহার করে দাতের আকার দেখে একটি পরিমাপ বের করা যায় কিনা তার চেষ্টা করতে, যা দিয়ে একে এইপদের দাত থেকে আলাদা করা যেতে পারে। এই কাজটাই তাকে আগ্রহী করে তোলে মানুষের জীববিজ্ঞানে, মানুষের বুদ্ধিবৃত্তির নানা আবিষ্কারের প্রতি।

এই সময় ব্রনোস্কি টেলিভিশন ব্রডকাষ্টার হিসাবে তার জীবন শুরু করেন, সে জীবন তাকে অমর করে রেখেছে অসংখ্য মানুষের কাছে।৫০ এর দশকে বিবিসি টেলিভিশনের The Brain Trust নামে একটি অনুষ্ঠানে তাকে নিয়মিত দেখা যেত, যেখানে তিনি নানা বিষয়ে বিভিন্ন  উত্তর দিতেন। এখানেই তার জ্ঞানের পরিধি সুস্পষ্ট হয়ে ওঠে, যে কোন বিষয়ে, যে কোন জটিল বৈজ্ঞানিক ধারনাকে সহজবোধ্য ব্যাখা দেবার তার দক্ষতা তাকে দ্রুত ব্রিটিশ জনগনের কাছে সুপরিচিত করে তোলে।

মানুষের মানবিক আকাঙ্খাগুলোকে তিনি কখনো আলাদা করে দেখেননি তার বৈজ্ঞানিক আকাঙ্খাগুলো থেকে। তিনি বিশ্বাস করতেন মানুষের মানবিক উত্থান হয়েছে বৈজ্ঞানিক প্রচেষ্টায় সুদীর্ঘ ধারাবাহিকতায়, মানুষের অদম্য কৌতুহল আর বিজ্ঞানকে বোঝার প্রচেষ্টার মাধ্যমে; এই সময় বেশ কয়েকটি বই প্রকাশ করেন তিনি: Science and Human Values, The Common Sense of Scienc, The Identity of Man। মানবিক বিজ্ঞান এবং জীববিজ্ঞানের মধ্যে যোগসুত্র তৈরী করার লক্ষ্যে সৃষ্ঠ ক্যালিফোর্নিয়ায় Salk Institute for Biological Studies গড়ে তোলার সাংগঠনিক দায়িত্বেও জড়িয়ে পড়েন, যেখানে তিনি যুক্ত ছিলেন ১৯৭০ অবধি।

লেখনী এবং বক্তা হিসাবে জ্ঞান এবং দর্শনের নানা বিষয়কে ব্যাখ্যা করার অসাধারন ক্ষমতা তাকে সুপরিচিত করে তোলে বিশ্বব্যাপী। তিনি ৬০ এর দশকে বিবিসির একটি অনুষ্ঠান Insight উপস্থাপনা করেছিলেন, যেখানে তিনি গনিত এবং পদার্থবিদ্যা, মানুষের বুদ্ধিবৃত্তিক নানা বিষয়ের ধারনাগুলোকে বোধগম্য ভাষায় সবার জন্য উপস্থাপন করেছিলেন।

তার জীবনের শেষ কাজটি তিনি করেছিলেন ১৯৭১/৭২ সালে, বিবিসির জন্য তিনি গ্রন্থনা ও উপস্থাপনা করেছিলেন তার বিখ্যাত ধারাবাহিক প্রামান্যচিত্রটি The Ascent of Man; সারা পৃথিবী ঘুরে দুই বছর ধরে তিনি লিপিবদ্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন, বিজ্ঞানকে বোঝার মাধ্যমে কিভাবে মানব সমাজ ও সভ্যতার বিকাশ ঘটেছে।১৯৭৩ সালে ১৩টি পর্বে যেটি প্রচারিত হয়েছিল।১৯৭৩ সালে এটি বই আকারেও প্রকাশিত হয়।

তার এই ধারাবাহিকটি পরবর্তীতে বহু একই ধরনের বহু ধারাবাহিকের অনুপ্রেরণা এবং পথ প্রদর্শক ছিল এবং আজো অনুকরন হয়ে আছে তার সেই উপস্থাপনা ভঙ্গী। ১৩ পর্বের এই ধারাবাহিকটি তৈরী করার ধকল তাকে অসুস্থ করে ফেলে। ১৯৭৪ সালে নিউ ইয়র্কের লং আইল্যান্ডে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। উত্তর লন্ডনের হাইগেট সিমেট্রিতে চিরনিদ্রায় শুয়ে আছেন ব্রনোস্কি।

The Ascent of Man এ তিনি বলেছিলেন :

My ambition is to create a philosophy for the twentieth century that shall be all one piece.  There cannot be a decent philosophy, there cannot be a decent science, without humanity.

ব্রনোস্কির দর্শনকে তার নিজের ভাষায় এক বাক্যে বোধ হয় এভাবে বলা সম্ভব :

I see now that the problem of man’s status between the world and himself has haunted me since the difficult days of boyhood. All that I have written, though it has seemed to me so different from year to year, turns to the same centre: the uniqueness of man that grows out of his struggle (and his gift) to understand both nature and himself.

The Ascent of Man: ১৩ পর্ব

প্রথম পর্ব : Lower than the Angels — Evolution of man from proto-ape to the modern form 400,000 years ago.

দ্বিতীয় পর্ব: The Harvest of the Seasons — Early human migration, agriculture and the first settlements, and war.

তৃতীয় পর্ব: The Grain in the Stone — Tools, and the development of architecture and sculpture.

চতুর্থ পর্ব : The Hidden Structure — Fire, metals and alchemy.

পঞ্চম পর্ব: Music of the Spheres — The language of numbers and mathematics.

ষষ্ঠ পর্ব: The Starry Messenger — Galileo’s universe–and the implications of his trial on the shift to “northern” science.

সপ্তম পর্ব: The Majestic Clockwork — Explores Newton and Einstein’s laws.

অষ্টম পর্ব: The Drive for Power — The Industrial Revolution and the effect on everyday life.

নবম পর্ব: The Ladder of Creation — Darwin and Wallace’s ideas on the origin of species.

দশম পর্ব: World within World — The story of the periodic table–and of the atom.

একাদশ পর্ব: Knowledge or Certainty — Physics and the clash of the pursuit of absolute vs. imperfect knowledge, and the misgivings of the scientists realizing the terrible outcome of the conflict.

দ্বাদশ পর্ব: Generation upon Generation — The joys of life, sex, and genetics–and the dark side of cloning.

এয়োদশ পর্ব: The Long Childhood — Bronowski’s treatise on the commitment of man

Advertisements
জ্যাকব ব্রনোস্কি এবং The Ascent of Man

3 thoughts on “জ্যাকব ব্রনোস্কি এবং The Ascent of Man

  1. প্রামাণ্য চিত্রটা দেখা হয়নি। আপনার লেখা পড়ে খুবই আগ্রহী হলাম। অচিরেই দেখে ফেলব, তবে আমার থিসিসটা শেষ হওয়ার পর। 🙂

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s