ডারউইনের কিছু ভবিষ্যদ্বাণী

A mind that is stretched by a new experience can never go back to its old dimensions. Oliver Wendell Holmes


শীর্ষ ছবি : ১৮৫৫ সালে চার্লস রবার্ট ডারউইন (১২ ফেব্রুয়ারী ১৮০৯ -১৯ এপ্রিল ১৮৮২) ( উইকিমিডিয়া)

(লেখকের কথা: পিটার টাইসন এর Darwin’s predictions অবলম্বনে লেখা)

ভুমিকা:

তাঁর সময়ের তুলনায় চার্লস ডারউইন অনেক এগিয়ে ছিলেন, শুধুমাত্র এই কথাটা বললে তাঁর প্রতি খুব একটা সুবিচার করা হবে না। বিবর্তনবাদের এই জনকের অনেক অনুমানই ১৮৮২ সালে তার মৃত্যুর অনেক বছর পর এবং কোন কোন ক্ষেত্রে  সম্প্রতি, প্রমানিত হয়েছে আর বিজ্ঞানীরা তাঁর ধারনাগুলোর স্বপক্ষে খুজে  পেয়েছেন পর্যাপ্ত পরিমান সব স্বাক্ষ্যপ্রমান। বর্তমানে প্রাপ্ত সকল প্রমান – যা সুষ্পষ্টভাবে তার প্রস্তাবিত প্রাকৃতিক নির্বাচনের মাধ্যমে বিবর্তন প্রক্রিয়া এবং তাঁর আরো কিছু অনুমানকেই সমর্থন করে – এসেছে বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখা থেকে, যেমন জীবাশ্মবিদ্যা,ভুতত্ত্ব, জৈবরসায়ন, জীনতত্ত্ব, অনুজীববিজ্ঞান এবং অতি সম্প্রতি ইভোলুশনারী ডেভোলপমেন্টাল বায়োলজী বা ‘ইভো ডেভো’, ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞানী কেনেথ মিলার’এর মতে ‘আমরা কোথা থেকে এসেছি এই প্রশ্নের একটি সাধারন উত্তর দেবার জন্য এতোগুলো ক্ষেত্র থেকে আসা প্রমানগুলো যে একটি সিদ্ধান্তে পৌছাতে পারছে, এই বিষয়টাইতো অত্যন্ত শক্তিশালী। একারনেই বিবর্তন তত্ত্বের স্বপক্ষে বৈজ্ঞানিক প্রমানের পরিমান অনেক বেশী।’

Continue reading “ডারউইনের কিছু ভবিষ্যদ্বাণী”

ডারউইনের কিছু ভবিষ্যদ্বাণী

আমাদের পারিবারিক বৃক্ষ


শীর্ষ ছবি: All in the Family, টাইম ম্যাগাজিন/নেচার ( http://blog.joinsmsn.com/usr/c/h/chobjay47/10/
human%20tree(0).jpg)

(লেখকের কথা: রিমা চাড্ধা’র Our Family Tree অবলম্বনে। রিমা চাড্ধা’র Our Family Tree একটি ইন্টারঅ্যাকটিভ স্লাইড শো । খুব সহজবোধ্য উপাস্থপনের জন্য স্লাইডগুলো বাংলায় রুপান্তরিত করেছি, রিমা চাড্ধা Nova Science now এবং Nova online এর সহকারী সম্পাদক)

‘হমিনিড’ বা গ্রেট এইপদের পরিবারের মধ্যে আমার সবচেয়ে বুদ্ধিমান হতে পারি, কিন্তু অন্য গ্রেট এইপ: শিম্পান্জ্ঞি, বনোবো এবং ওরাং উটান -দের সাথে আমাদের অনেক কিছুরই মিল আছে । অন্যদিকে লেসার প্রাইমেট, যেমন বানরদের, সাথে আমাদের বড় পার্থক্যগুলো হচ্ছে, আমরা সহ পাঁচ হমিনিড প্রাইমেটদের কোন লেজ নেই, শরীরের আকারও বড় আর বুদ্ধিমত্তাও বেশী। এমনকি আমাদের ডিএনএ’র শতকরা ৯৮ ভাগই একরকম। তারপরও কিছু পার্থক্য আছে, আমাদের এই পরিবারের সদস্যেদের মাঝে, যেমন, খাদ্যাভ্যাস, মেজাজ আর সামাজিক আচরণে। এই সরলীকৃত আমাদের পারিবারিক বৃক্ষে সংক্ষেপে এবং সামগ্রিকঅর্থে আমাদের সাথে অন্যান্য গ্রেট-এইপদের কি ধরনের সদৃশ্যতা বা বিসদৃশ্যতা আছে তা দেখানো হয়েছে :

Continue reading “আমাদের পারিবারিক বৃক্ষ”

আমাদের পারিবারিক বৃক্ষ

আমাদের এই প্রাচীন শরীর


শীর্ষ ছবি: Tiktaalik rosae র ফসিলের একাংশ হাতে ডঃ নিল এইচ শুবিন, প্রায় ৩৭৫ মিলিয়ন বছর আগের এই প্রজাতিটি মাছ এবং স্থলচার প্রাণিদের বিবর্তনের মধ্যবর্তী শূন্যস্থানটি পূরণ করেছে।

The best road maps to human bodies lie in the bodies of other animals. The simplest way to teach students the nerves in the human head is to show them the state of affairs in sharks. The easiest road map to their limbs lies in fish. Reptiles are a real help with the structure of the brain. The reason is that the bodies of these creatures are often simpler versions of ours. Neil H. Shubin (in the preface of his book Your Inner Fish: A Journey Into the 3.5-Billion-Year History of the Human Body )

শুরুর কথা:  ফিল্ডস মিউজিয়ামের একাডেমিক অ্যাফেয়ার প্রভোষ্ট নীল এইচ শুবিন (Neil H. Shubin) একজন প্রখ্যাত জীবাশ্মবিদ। বর্তমানে তিনি শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের রবার্ট আর. বেন্সলে অধ্যাপক এবং ওরগানিজম্যাল ও বিবর্তন জীববিজ্ঞান ফ্যাকাল্টির অ্যাসোসিয়েট ডীন । তিনি এমন কিছু জীবাশ্ম আবিষ্কার করেছেন, যা বিবর্তনের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি ক্রান্তিকালীন সময় যেমন: সরীসৃপ থেকে স্তন্যপায়ী, জলজ থেকে স্থলচর প্রাণীর ‍বিবর্তন সম্বন্ধে আমাদের জ্ঞানের পরিধিকে অনেকদুর এগিয়ে নিয়ে গেছে। এই আবিষ্কারগুলো গ্রিনল্যান্ড থেকে মরোক্কো পর্যন্ত্ জীবাশ্ম সন্ধানের লক্ষ্যে তাঁর বেশ কিছু অভিযানের ফসল। ২০০৬ সালে শুবিন এবং তার সহযোগীরা নেচার (Nature) জার্নালে টিকটালিক -এর (মাছ আর উভচর প্রাণীদের অন্তবর্তীকালীন একটি প্রাণী) জীবাশ্ম আবিষ্কারের বিষয়ে প্রথম তথ্য প্রকাশ করেন। বর্তমান এই লেখাটি জানুয়ারী ২০০৯ এ দ্য সায়েন্টিফিক অ্যামেরিকান পত্রিকায় প্রকাশিত তার This old body এবং নোভা/ পিবিএস এর ওয়েবসাইট জন্য তার সম্পাদিত একটি ইন্টারঅ্যাক্টিভ স্লাইড শো: The zoo of you অবলম্বনে লেখার চেষ্টা করেছি আমি। ( ইন্টারঅ্যাক্টিভ স্লাইডগুলোর জন্য শুবিন তাঁর নিজের Your Inner Fish: A Journey Into the 3.5-Billion-Year History of the Human Body বইটি ব্যবহার করেছেন আর মূল স্লাইডগুলো ইলাস্ট্রেশন করেছেন কাল্লিওপি মনোইয়োস।)

Continue reading “আমাদের এই প্রাচীন শরীর”

আমাদের এই প্রাচীন শরীর

বিবর্তন জীববিজ্ঞানে দশটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি


(লেখকের  কথা : কার্ল জিমার ( Carl Zimmer) এর “Ten great advances of evolution” অবলম্বনে )

ডারউইনের যুগান্তকারী ‘অরিজিন অব স্পিসিস’ প্রকাশনার ১৫০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষ্যে এখানে বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞানে গত কয়েক দশকের উল্লেখযোগ্য কিছু অগ্রগতির একটি তালিকার উল্লেখ করা হলো -অবশ্যই তালিকাটি কোনভাবেই সম্পুর্ন নয় । এই অগ্রগতির তালিকায় শুধুমাত্র কোন বিশেষ ধরনের প্রজাতির উদ্ভব সম্বন্ধে আমাদের বোঝার ক্ষেত্রে কোন ইতিবাচক পরিবর্তনের কারনই অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি, এই তালিকায় অর্ন্তভুক্ত আছে মুল বিবর্তনের প্রক্রিয়া সম্বন্ধে আমাদের অর্ন্তদৃষ্টির কিছু মৌলিক অগ্রগতি। কোন কোন ক্ষেত্রে এইসব অর্ন্তদৃষ্টিগুলো ডারউইনকেই বিস্ময়ের আনন্দময় ধাক্কা দিতে পারতো।


ছবি ১: কার্ল জিমারের মতে গত দশকের বিবর্তন গবেষনায় ১০ টি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি (ফটো ক্রেডিট: আর্থ (নাসা); টেক্সট (ডাবলিউ জি বি এইচ এডুকেশন ফাউন্ডেশন)

Continue reading “বিবর্তন জীববিজ্ঞানে দশটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি”

বিবর্তন জীববিজ্ঞানে দশটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি

মহান মনিষীরা একই ভাবে চিন্তা করেন: কেমন করে ‍আলফ্রেড ওয়ালেস ডারউইনের মত একই রকম বৈপ্লবিক অন্তদৃষ্টি অনুভব করেছিলেন।


শীর্ষ ছবি: রয়্যাল সোসাইটির ৩৫০ তম বার্ষির্কীতে প্রকাশিত একটি স্ট্যাম্পে আলফ্রেড রাসেল ওয়ালেস।(সুত্র:  রয়াল সোসাইটির ওয়েব পেজ)

‘All truth is easy to understand once they are discovered; the point is to discover them.’ Galileo Galilei 

( ৮ জানুয়ারী আলফ্রেড রাসেল ওয়ালেস এর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে লেখাটি রি পোষ্ট করলাম। ব্লগ জগতে ঢোকার পর এটা আমার প্রথম লেখা ছিল)

লেখকের নোট:  মুলতঃ শন বি ক্যারল (Sean B Carroll) এর Great Minds Think Alike: How Alfred Wallace came to share Darwin’s revolutionary insights অবলম্বনে এটি লেখা । লেখাটির একটি সম্পাদিত ভার্সন,২০১১ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারী মুক্তমনা ব্লগে প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল। এই ভার্সনটি আরেকটু পরিবর্ধিত করা হয়েছে শন বি ক্যারল এর Remarkable Creatures: Epic Adventures In The Search For The Origins of Species এর তৃতীয় অধ্যায় Drawing the lines between Monkeys and Kangaroos অবলম্বনে।

সমান্তরাল পথে:

গত দুইশত বছরে, সাধারন আর বিশেষায়িত,দুই ধরনের প্রানীর প্রজাতির উৎপত্তির কারন অনুসন্ধান অনুপ্রাণিত করেছে অনেকগুলো অসাধারন অভিযান। পুরো ২০০৯ সাল জুড়ে, চার্লস ডারউইনের দুইশততম জন্মবার্ষিকীতে,সারা পৃথিবী শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেছে আমাদের সবচেয়ে মহান প্রকৃতিবিজ্ঞানী আর সুদূরপ্রসারী এক বৈজ্ঞানিক বিপ্লবের নেতার অবদান।

ডারউইনের বিখ্যাত সমুদ্রযাত্রা আর তার গবেষনা অতি সুপরিচিত, আর তা অত্যন্ত সঙ্গত কারনে। পরিচিত হওয়াটাই উচিৎ।কিন্তু বিবর্তন তত্ত্বের সূচনা, শুরুর দিকে এর ক্রমবিকাশ আর গ্রহনযোগ্যতার জন্য আমরা কিন্তু আলফ্রেড রাসেল ওয়ালেস এর কাছেও অনেকাংশে ঋণী। আরো অনেকবেশী কঠিন ‍অবস্থার মধ্য দিয়ে যিনি দুটি সুদীর্ঘ সমুদ্রযাত্রা করেছিলেন এবং স্বতন্ত্রভাবে প্রজাতির উৎপত্তি সম্বন্ধে ডারউইনের মত একই ধরনের ‍উপসংহারে পৌছে ছিলেন।

Continue reading “মহান মনিষীরা একই ভাবে চিন্তা করেন: কেমন করে ‍আলফ্রেড ওয়ালেস ডারউইনের মত একই রকম বৈপ্লবিক অন্তদৃষ্টি অনুভব করেছিলেন।”

মহান মনিষীরা একই ভাবে চিন্তা করেন: কেমন করে ‍আলফ্রেড ওয়ালেস ডারউইনের মত একই রকম বৈপ্লবিক অন্তদৃষ্টি অনুভব করেছিলেন।